রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর ৮টি ভালো উপায় সম্পর্কে জানুন

Posted by

আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ  ক্ষমতা বাড়ানো অত্যন্ত জরুরী। কেননা রোগ প্রতিরোধ না থাকলে যেকোন রোগ অতি সহজেই আক্রমণ করতে পারে। বর্তমানে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আমাদের কিছু নিয়ম এবং খাদ্যাভাস পরিবর্তন করতে হবে।

আজকের পোষ্টে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ৮ টি কার্যকরী উপায় আলোচনা করা হল।

ঔষধি গুণসমৃদ্ধ কালোমরিচ বা গোলমরিচের উপকারিতা ও অপকারিতা

ঔষধি গুণসমৃদ্ধ রসুনের উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানুন

১) খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তনঃ 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য খাদ্যাভাসে একটু পরিবর্তন আনতে হবে। সুষম ও পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। প্রচুর শাকসবজি ও ফলমূল খান।প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান করুন( ৮ থেকে ১০ গ্লাস)। ফাস্টফুড, তেল-চর্বি ও মসলা জাতীয় খাবার পরিহার করার চেষ্টা করুন।

২) ভিটামিনস ও মিনারেল জাতীয় খাদ্যগ্রহণঃ

ভিটামিন ও মিনারেল জাতীয় খাবার খেতে হবে। বিভিন্ন টক জাতীয় ফল যেমন লেবু, কমলালেবু, জাম্বুরা, আমড়া ইত্যাদি খেতে হবে । কেননা, এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। এসব ফল পাওয়া না গেলে বাজার থেকে ভিটামিন সি ট্যাবলেট কিনে খেতে পারেন। তবে ট্যাবলেটের থেকে প্রাকৃতিক উৎস পাওয়া ভিটামিন সি এর কার্যকারিতা বেশি।

এছাড়া ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার খান যেমন- ডিমের কুসুম, দুধ, মাছ, মাংস , মাশরুম প্রভৃতি। সূর্যের আলোর থেকে আমাদের শরীরে ভিটামিন ডি তৈরি হয়। সকালবেলার সূর্যরশ্মি গায়ে লাগান।

সর্দি-কাশি উপসর্গে জিংকের বেশ উপকারিতা রয়েছে। জিংক যুক্ত খাবারগুলো হচ্ছে আদা, রসুন, ডাল, বিন্স, বাদাম, সামুদ্রিক মাছ ইদ্যাদি। এছাড়া বাজার থেকে জিংক ট্যাবলেট কিনতে পাওয়া যায়।

৩) মধু সেবন করুনঃ

মধুতে কিছু জীবাণু ধ্বংসকারী উপাদান রয়েছে, যেমন হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড, নাইট্রিক অক্সাইড প্রভৃতি। তাই সর্দি-কাশি উপসর্গে মধু বেশ উপকারী। তবে ডায়াবেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে সাবধানে খেতে হবে।

৪) অ্যান্টিবায়োটিক যুক্ত খাবার:

অ্যান্টিবায়োটিক খাবার গ্রহণ করুন যেমন দই, চিজ ইত্যাদি খাবারে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

 ৫) ধূমপান ও মদ্যপান পরিহার করুন:

ধূমপান সরাসরি আপনার শ্বাসতন্ত্রকে দূর্বল করে দেয়। যেহেতু করোনা ভাইরাস শ্বাসতন্ত্রের রোগ, এতে সংক্রমের আশঙ্কা বেড়ে যায়। তাই ধূমপান ও মদ্যপান পরিহার করুন।

৬) ঘুম: এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। প্রতিদিন অন্তত ৮ ঘণ্টা করে ঘুমনোর চেষ্টা করুন। পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

৭) নিয়মতি শরীরচর্চা করুনঃ

শরীরকে সুস্থ রাখতে এবং রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে শরীরচর্চার ভুমিকা অপরিসীম। বর্তমানে লকডাউনের কারণে আমরা ঘরেই অবস্থান করছি। প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট এবং বাচ্চাদের অন্তর ১ ঘণ্টা শরীরচর্চা করা উচিত।

৮) মানসিক চাপ থেকে মুক্ত থাকুনঃ

অতিরিক্ত মানসিক চাপে আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে ফেলে। তাই মানসিক চাপমুক্ত থাকার চেষ্টা করতে হবে।প্রতিদিন এমন কিছু করুন বা বলুন যেগুলি আপনাকে মানসিক চাপ থেকে মুক্ত রাখতে পারে। এরজন্য আপনি আপনার ভালো লাগার কিছু বই পড়ুন, গান শুনুন, সিনেমা দেখুন, বিখ্যাত ব্যক্তির মোটিভেশনাল উক্তিগুলি পড়ুন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *